প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃত করার মামলায় একজনের সাত বছর কারাদণ্ড

তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারার মামলায় মনির হোসেন নামের এক ব্যক্তিকে সাত বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আদালতে হাজির ছিলেন মনির। পরে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সাইবার ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি নজরুল ইসলাম শামীম প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ট্রাইব্যুনালের পেশকার শামীম আল মামুন বলেন, ৫৭ ধারার এ মামলায় মনিরকে ৭ বছর কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। আর অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আলমগীর হোসেন ও সুব্রত নামের দুই আসামিকে খালাস দিয়েছেন আদালত।পেশকার শামীম আল মামুন আরও জানান, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান ও ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের ছবি বিকৃত করার অভিযোগে ২০১৩ সালে সাটুরিয়া থানায় মামলা হয়।

কবিরাজ : তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদিক ঔষধের দ্বারা নারী- পুরুষের সকল জটিল ও গোপন রোগের চিকিৎসা করা হয়। দেশে ও বিদেশে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – খিলগাঁও, ঢাকাঃ। মোবাইল : ০১৮২১৮৭০১৭০ (সময় সকাল ৯ – রাত ১১ )

এতে চারজনকে আসামি করা হয়। তাঁরা হলেন মোহাম্মদ মনির, আলমগীর, সুব্রত ও প্রভাব চন্দ্র সরকার। পরের বছর এই চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। অভিযোগ গঠনের সময় অব্যাহতি পান আসামি প্রভাব চন্দ্র। আর আসামি মনিরসহ অপর তিনজনের বিরুদ্ধে আদালত অভিযোগ গঠন করেন।