পরীক্ষার হল থেকে বেরিয়ে কান্না শুরু করল উর্মি

শনিবার সকাল ১০টার আগে পরীক্ষা দেয়ার জন্য উর্মি সুলতানা যখন বাড়ি থেকে বেরিয়েছে তখন মারা গেছে তার বাবা খোকন সরদার (৩০)।

তবে পরীক্ষা শেষ হওয়ার আগে জানতে পারেনি উর্মি সুলতানা তার বাবা মারা গেছেন। হৃদয় বিদারক এ ঘটনাটি ঘটে সাতক্ষীরার তালা উপজেলার খেশরা ইউনিয়নের ডুমুরিয়া গ্রামে।

খেশরা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও পূর্ব ডুমুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক এসএম লিয়াকত হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, মেয়েকে পরীক্ষা দিতে যাওয়ার জন্য দোয়া করে ক্ষেতের জমিতে পানি দেয়ার জন্য যান খোকন সরদার। মেয়েও পরীক্ষা দিতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়ে।

সকাল ৯.৪৫ মিনিটে খোকন সরদার জমিতে পানি দেয়ার জন্য শ্যালো মেশিন চালু করলে হঠাৎ হৃদরোগে আক্রান্ত হন। পাশের এক ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সাবেক চেয়ারম্যান এসএম লিয়াকত হোসেন আরও বলেন, খোকনের মেয়েটি তখন পরীক্ষা দিতে যাচ্ছিল। তাৎক্ষণিক আমি মেয়েটিকে অন্য রাস্তা দিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে নিয়ে যাই। কিন্তু তাকে জানানো হয়নি তার বাবা মারা গেছেন। পরীক্ষা শুরুর ১০ মিনিট আগে মেয়েটিকে কেন্দ্রে দিয়ে কেন্দ্র সচিবকে জানিয়ে আসলাম বিষয়টি। উর্মি সুলতানা খেশরা ইউনিয়নের ডুমুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। টেস্ট পরীক্ষায় গোল্ডেন এ প্লাস পেয়েছে মেয়েটি। হঠাৎ এতিম হয়ে গেলো। পরীক্ষা শেষে দুপুরে বাড়ি আসার পর উর্মি জানতে পারে তার বাবা মারা গেছেন। বিকেলে খোকন সরদারের দাফন সম্পন্ন হয়।

তালা থানা পুলিশের ওসি মেহেদী রাসেল বলেন, এক এসএসসি পরীক্ষার্থীর বাবা মারা যাওয়ার বিষয়টি শুনেছি। তবে এ নিয়ে কেউ কোনো অভিযোগ না করায় মরদেহ দাফনের অনুমতি দেয়া হয়।