প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃত করার মামলায় একজনের সাত বছর কারাদণ্ড

তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারার মামলায় মনির হোসেন নামের এক ব্যক্তিকে সাত বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আদালতে হাজির ছিলেন মনির। পরে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সাইবার ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি নজরুল ইসলাম শামীম প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ট্রাইব্যুনালের পেশকার শামীম আল মামুন বলেন, ৫৭ ধারার এ মামলায় মনিরকে ৭ বছর কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। আর অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আলমগীর হোসেন ও সুব্রত নামের দুই আসামিকে খালাস দিয়েছেন আদালত।পেশকার শামীম আল মামুন আরও জানান, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান ও ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের ছবি বিকৃত করার অভিযোগে ২০১৩ সালে সাটুরিয়া থানায় মামলা হয়।

কবিরাজ : তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদিক ঔষধের দ্বারা নারী- পুরুষের সকল জটিল ও গোপন রোগের চিকিৎসা করা হয়। দেশে ও বিদেশে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – খিলগাঁও, ঢাকাঃ। মোবাইল : ০১৮২১৮৭০১৭০ (সময় সকাল ৯ – রাত ১১ )

এতে চারজনকে আসামি করা হয়। তাঁরা হলেন মোহাম্মদ মনির, আলমগীর, সুব্রত ও প্রভাব চন্দ্র সরকার। পরের বছর এই চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। অভিযোগ গঠনের সময় অব্যাহতি পান আসামি প্রভাব চন্দ্র। আর আসামি মনিরসহ অপর তিনজনের বিরুদ্ধে আদালত অভিযোগ গঠন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *