বাড়ি গিয়ে ফ্রিতে কুরআন শেখানোই যার কাজ

হাদিসে পাকে প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ঘোষণা দেন, ‘তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তি সে, যে কুরআন শেখে এবং অন্যকে শেখায়।’ এমনই একটি মহৎ কাজে নিজেকে নিয়োজিত করেছেন তুরস্কের এক বৃদ্ধ লোক।লোকটি তার ব্যাগের ওপর কুরআন শিক্ষা কার্যক্রমের একটি ঘোষণাপত্র লিখে তুরস্কের রাস্তায় চলাফেরা করেন। তাতে তার মোবাইল নাম্বার ও লেখা রয়েছে।তিনি তার ব্যাগের ওপর একটি বার্তা লিখে রাখেন-

‘প্রতিদিন ১০ মিনিট ব্যয় করলে আমি আপনাকে কুরআন শিক্ষা দিতে পারি। আপনি আমাকে যেখানে আসতে বলবেন, আমি সেখানে আসতে পারি, হতে পারে সেটা আপনার বাড়ি কিংবা অফিস। কুরআন সেখানোর জন্য আমি কোনো পারিশ্রমিক গ্রহণ করি না। আমি এটা শুধুমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য করে থাকি।’

তুরস্কের এ বৃদ্ধ লোকের কাধে ঝুলানো ব্যাগ ও তার আহ্বানের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। ছবি দেখে যাতে লোকটিকে চিনতে পারে এবং ঘোষণা পত্রে লেখা রয়েছে মোবাইল নাম্বার; যার মাধ্যমে মানুষ তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারে।প্রকৃতপক্ষে এ বৃদ্ধের কাজটি হাদিসের পরিভাষায় অনেক উত্তম কাজ। এ কাজে আল্লাহ তাআলা তাকে সর্বোত্তম প্রতিদান দেবেন।বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর জন্য তিনি এক আদর্শ অনুপ্রেরণা। একজন মুসলমানের কি ধরনের কার্যক্রম হওয়া উচিত যার কিছু তিনি তার কাজের মাধ্যমে তুলে ধরেছেন।

বৃদ্ধার ভাষায়, ‘কোনো ব্যক্তি যদি কুরআন শিখতে চায়, সে তার বাড়ি কিংবা অফিসে গিয়েও কুরআন শেখাতে রাজি আছেন। কুরআন শেখানোর বিনিময়ে তিনি কোনো পারিশ্রমিক গ্রহণ করবেন না। যদি কেউ প্রতিদিন ১০ মিনিট করে সময় বের করে তাকে আহ্বান করেন, সে তাদের আহ্বানে সাড়া দেবে।যদিও লোকটির নাম ও ঠিকানা জানা যায়নি, কিন্তু তার লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য মহৎ।

প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সে মহান ঘোষণারই অংশ।সুতরাং বর্তমান সময়ে যারা পবিত্র কুরআনুল কারিম জানেন, তাদের জন্য তুরস্কের এ বৃদ্ধ ব্যক্তিটি হতে পারেন অনুপ্রেরণা। যাতে প্রতিটি কুরআন জানা লোক সমাজের কুরআনের শিক্ষা থেকে বঞ্চিত লোককে কুরআনুল কারিম শেখাতে পারে।আল্লাহ তাআলা কুরআন প্রেমিক এ বৃদ্ধসহ দুনিয়ার সব কুরআন প্রেমিককে যথাযথ পুরস্কার ও প্রতিদান দান করুন। আমিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *