সুপারস্টার শাকিব খানের থেকেও দাম বেশি সিয়ামের

শাকিব খান এখন ঢালিউডের সবথেকে দামী নায়ক। যার নামের ওপর কোটি টাকা লঘ্নি করেন প্রযোজকরা। যার ছবি হলে মুক্তি পেলে আর প্রচারণার দরকার পরে না। কিং খানের লাখ লাখ ভক্তই সে ছবি নিয়ে যান হিটের কাতারে। আর সেই শাকিব খানের থেকে এখন নবাগত নায়ক সিয়াম আহমেদের দাম বেশি?

শুনতে অবিশ্বাস্য লাগলেও ঘটনা কিন্তু তেমনই ঘটেছে। আজ সারাদেশে মুক্তি পাওয়া সিয়াম আহমেদ ও পূজা চেরির ‘দহন’ মুক্তি পেয়েছে হাইরেন্টালে। ছবিটি নাকি এক লাখ থেকে শুরু করে সাড়ে পাঁচ লাখ টাকায় প্রেক্ষাগৃহ মালিকেরা প্রদর্শনের জন্য নিচ্ছেন।

আর শাকিব খানের ছবি নাকি এক লাখ থেকে শুরু করে পাঁচ লাখ টাকায় প্রদর্শন করে থাকেন প্রেক্ষাগৃহের মালিকেরা। এমনটাই জানিয়েছেন ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়ার কর্নধার আব্দুল আজিজ।

এমনটা হয়ে থাকলে শাকিব খানের থেকে ৫০ হাজার বেশি টাকায় প্রদর্শন হচ্ছে সিয়ামের এ ছবি। যদিও ছবিটি নিয়ে বেশকিছুদিন ধরেই তুমুল আলোচনা ছিল। কয়েকবার মুক্তির তারিখ পরিবর্তন করার পর আজ সারাদেশের ৪৬টি সিনেমা হলে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে।

‘দহন’ ছবির মাধ্যমে দ্বিতীয়বার একসঙ্গে বড় পর্দায় হাজির হচ্ছেন সিয়াম ও পূজা। এই জুটির প্রথম সিনেমা ‘পোড়ামন ২’। এ বছর রোজার ঈদে মুক্তি পাওয়া ছবিটি দেশের দর্শকের কাছে খুবই প্রশংসিত হয়। ব্যবসায়িকভাবেও ছবিটি সফলতা পায়।

আবদুল আজিজ বলেন, ‘আমাদের ইচ্ছে অল্প টাকার বিনিময়ে বেশি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শনের চেয়ে বেশি টাকায় কম প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা অনেক ভালো। তাই আমরা কম টাকায় ছবিটি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। প্রয়োজনে কম প্রেক্ষাগৃহে চালাব, কিন্তু রেন্টাল কমাব না।’

তিনি বলেন, ‘ছবিতে অনেকগুলো শক্তিশালী দিক রয়েছে। অসাধারণ একটি ছবি। বাংলাদেশের মানুষের কাছে সিয়াম ও পূজার গ্রহণযোগ্যতা তৈরি হয়েছে। এই ছবির গল্পের জোর আছে। পরিচালক রায়হান রাফি দারুণ একটা ছবি বানিয়েছেন। জাজ মাল্টিমিডিয়াও একটা ফ্যাক্টর। সবকিছু মিলিয়ে ছবিটি হাই ভোল্টেজ বলতে পারেন।’

প্রভাবশালী এ প্রযোজক বলেন, ‘দহন ছবিটি দর্শক অবশ্যই পছন্দ করবেন। বাংলাদেশে এ ধরনের গল্প নিয়ে ছবি হয়নি। এই ছবির গান ভালো, অভিনয়শিল্পীরাও দারুণ অভিনয় করেছেন। এই গল্পে আমাদের দেশের জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতির একটা চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। ছবিটি দেখে দর্শক কাঁদবেন, ভাববেন।’

তবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র বুকিং এজেন্ট সমিতির উচ্চপদস্থ একজন কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, ‘শুনেছি ছবিটি ভালো। চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট অনেকের কাছে এই ছবির ব্যাপারে ইতিবাচক মন্তব্য শুনেছি। তবে শাকিব খানের চেয়ে বেশি রেন্টাল দিয়ে নিতে হবে, তা মানতে পারছি না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *